1. jashimsarkar@gmail.com : admin :
  2. mahir1309@gmail.com : star mail24 : star mail24
  3. sayeed.fx@gmail.com : sayeed : Md Sayeed
  4. newsstarmail@gmail.com : Star Mail : Star Mail
মালয়েশিয়ায় অধ্যয়নরত বাংলাদেশের সিলেটি কন্যা বৃষ্টির মানবিকতা | Starmail24
শিরোনাম :
এমএলএম কোম্পানির সংবাদ প্রকাশ করায় সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে মামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন ঝিনাইদহে গাঁজার গাছসহ ছাত্রলীগ নেতা আটক মালয়েশিয়ায় প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার চাচী ও সাবেক ডেপুটি স্পিকার স্মরণে দোয়া মাহফিল বিশ্বসেরা গবেষকের তালিকায় বাংলাদেশি সাঈদুর রৌমারীতে নিজস্ব অর্থায়নে ২০০ হাত লম্বা বাঁশের সাঁকো মেরামত ফ্রান্সের বিরুদ্ধে অর্থনৈতিক অবরোধ আরোপের দাবি ঝিনাইদহের ভাষা সৈনিক জাহিদ হোসেন মুসা আর নেই মালয়েশিয়া আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতির মায়ের মৃত্যুতে দোয়া মাহফিল ভার্চুয়াল মিট-আপে মালয়েশিয়ায় ৬টি কোম্পানির উদ্বোধন মালয়েশিয়ায় শুরু হচ্ছে বৈধকরণ প্রক্রিয়া, পাসপোর্ট দ্রুত পেতে বাংলাদেশ সরকারের হস্তক্ষেপ কামনা




মালয়েশিয়ায় অধ্যয়নরত বাংলাদেশের সিলেটি কন্যা বৃষ্টির মানবিকতা

মোহাম্মদ আলী, মালয়েশিয়া প্রতিনিধিঃ
  • প্রকাশের সময় : সোমবার, ৯ নভেম্বর, ২০২০

বাংলাদেশের সিলেটের মেয়ে বৃষ্টি খাতুন। মালয়েশিয়ার সানওয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করছেন। চলমান নভেল করোনাভাইরাস পরিস্থিতির শুরু থেকে বাংলাদেশি এ নারী শিক্ষার্থীর পরিকল্পনায় এবং মালয়েশিয়ার ন্যাশনাল হোপ ফাউন্ড্শেন (ইয়াইয়াসান হারাপান নেগারা)”র চেয়ারম্যান দাতুক সায়মন, মালয়েশিয়া-ভিয়েতনাম এবং ফিলিপিন। এ তিনটি দেশের হিউম্যান রিসোর্সের ডিরেক্টর,জে শামালা ক্রিশনাম, মালয়েশিয়া বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্সের ডিরেক্টর মাহবুব আলম শাহ, বাংলাদেশ প্রেসক্লাব অব মালয়েশিয়ার সিনিয়র সহ-সভাপতি সাংবাদিক আহমাদুল কবির,সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ আলী ও মালয়েশিয়ার হিলটন হিউম্যান রিসোর্স টিমের সমন্বয় ও সহযোগিতায় খাদ্য সহায়তা কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছেন।

এখন পর্যন্ত তারা বাংলাদেশসহ প্রায় ৫৬ টি দেশের ইন্টারন্যাশনাল তিন হাজারেরও অধিক স্টুডেন্ট এবং অভিবাসী শ্রকিদের মধ্যে খাদ্যসহ বিভিন্ন উপহার সামগ্রী বিতরণ করে চলেছেন। এ ছাড়া মালয়েশিয়ার এতিম শিশুদেরও খাদ্য সহায়তা দিচ্ছেন বৃষ্টি।

মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশ দূতাবাসের এক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, বাংলাদেশি এক মেয়ে নিজে শিক্ষার্থী হওয়ার পরও বিভিন্ন দেশের শিক্ষার্থী ও অভিবাসী শ্রমিকদের জন্য করোনা পরিস্থিতিতে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। দূতাবাসের পক্ষ থেকে আমরাও তার মাধ্যমে কিছু সহযোগিতা করেছি।

বৃষ্টি খাতুন এ প্রতিবেদককে বলেন, মানুষের পাশে দাঁড়াতে শিল্পপতি বা বড় কিছু হওয়ার প্রয়োজন নেই। ইচ্ছা থাকলে সে যে কোন বয়সে, যা আছে তা থেকেই অন্যকে সহযোগিতা করতে পারেন। আমাদের এই ক্ষুদ্র প্রচেষ্টায় যদি কিছুটা মানুষের উপকার হয়, তাতেই আমরা সার্থক।

আবিদ, কৃষ্টিনা কার্ণি কুমার ফ্রাংক নাতান, নাবিলা কৃষ্টিফার, আশকিনা, আহমেদ, রাম কুমার, বাকীসহ অনেকেই খাদ্য সহায়তা পেয়ে খুশি। বৃষ্টির দেয়া উপহার সামগ্রীর মধ্যে রয়েছে- চাল ৫ কেজি, নুডলস, তেল ২/৩ লিটার, ছোলা বুট এক কেজি, মটর, ডাল, মুড়ি,চিড়া, খেজুর এক কেজি, কয়েক ধরনের ফল, বিভিন্ন ধরনের শাকসবজি ও মসলা, ডিম দুই হালি, দুধ বা মিল্ক পাউডার, স্যাভলন, হ্যান্ড-ওয়াশ ইত্যাদি।সিলেট নগরীর উপশহরের লন্ডনপ্রবাসী বিশিষ্ট ব্যবসায়ি বরকত আরমানের মেয়ে বৃষ্টি খাতুন ।




এই বিভাগের আরো সংবাদ