9/12/2019 , ঢাকা

মানুষকে মানুষ এভাবে পেটায়!


প্রকাশিত: 9/12/2019 16:36:53| আপডেট:

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: গলি দিয়ে হেঁটে যাচ্ছিলেন এক যুবক। সামনে থেকে কয়েক জনকে ছুটে আসতে দেখে পালানোর চেষ্টা করেন তিনি। কিন্তু দু’পাশ থেকে দশ-বারোজন এসে তাকে ঘিরে ধরে। শুরু করে মারধর। এক পর্যায়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন ওই যুবক। ওই অবস্থায় একজন তার পা ধরে থাকেন। তিন-চারজন মিলে ক্রিকেট স্ট্যাম্প ও লোহার রড দিয়ে বেধড়ক পেটাতে থাকেন তাকে। বেধড়ক মারধরে একপর্যায়ে নিথর হয়ে পড়ে তার দেহ। এরপর তাকে গলির রাস্তায় ফেলে চলে যায় তারা। মারধর করার সময় ওই দশ-বারো জনের কারো কারো হাতে ছিল ধারালো অস্ত্র।

গত রোববার বিকেল সোয়া পাঁচটার দিকে চট্টগ্রাম নগরের আকবরশাহ থানার বিশ্ব কলোনি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এমন মধ্যযুগীয় কায়দায় মারধরের একটি ভিডিও এরই মধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে।

এ ঘটনায় জড়িত দুই যুবকসহ পাঁচজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তারা হলেন- মো. সাজু, মাসুদ, মিরাজ, বেলাল ও তারেক। তাদের মধ্যে সাজু ঘটনাস্থলে কিরিচ নিয়ে উপস্থিত ছিলেন। তার কাছ থেকে কিরিচটি উদ্ধার করা হয়েছে।

হামলার শিকার বিশ্ব কলোনির এন ব্লকের বাসিন্দা যুবলীগ কর্মী মো. মহসিন। তিনি উত্তর পাহাড়তলী ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক সরওয়ার মোর্শেদ কচির অনুসারী হিসেবে পরিচিত। তার অভিযোগ, একই ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের আরেক যুগ্ম আহ্বায়ক ও স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর জহুরুল আলম জসিমের অনুসারীরা তার ওপর এ হামলা চালিয়েছে। তবে অভিযোগ অস্বীকার করেছেন জহুরুল আলম জসিম।

আকবরশাহ থানার ওসি মো. জসীম উদ্দিন বলেন, গত ২৭ জুন জামিন নিয়ে কারাগার থেকে বের হন মহসিন। তার বিরুদ্ধে মারামারির অভিযোগে তিনটি মামলা রয়েছে। রোববার প্রতিপক্ষের হাতে মারধরের শিকার হন তিনি। তাকে মারধরের ভিডিও ফুটেজটি সংগ্রহ করা হয়েছে। ঘটনায় জড়িতদের শনাক্ত করার চেষ্টা চলছে। ইতিমধ্যে সরাসরি জড়িত দুইজনসহ পাঁচজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকিদের শনাক্ত করে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। কি কারণে মহসিনকে এমন মারধর করা হয়েছে সেটা এখনো নিশ্চিত নই। আসামিদের জিজ্ঞাসাবাদের পর বিস্তারিত জানা যাবে।

তবে স্থানীয় সূত্র জানায়, স্থানীয় কাউন্সিলর জহুরুল আলম জসিম ও সরওয়ার মোর্শেদ কচির অনুসারীদের মধ্যে নিয়মিত মারামারি ঘটনা ঘটে। এসব ঘটনায় দুই গ্রুপের অনুসারীদের বিরুদ্ধে একাধিক মামলা রয়েছে। গত ২৯ জুন জসিমের অনুসারী বেলাল উদ্দিন জুয়েলকে মারধর করে সরওয়ার মোর্শেদ কচির অনুসারীরা। এর জের ধরে কচির অনুসারী মো. মহসিনকে এমন বেধড়ক পেটানো হয়েছে।

পুলিশ জানায়, এ ঘটনায় ভিডিও ফুটেজ দেখে জহুরুল আলম জসিমের অনুসারী গিয়াস উদ্দিন তুহিন, পারভেজ উদ্দিন, সাজু, তারেক, জুয়েল, রাব্বী, ফারহান ও খোকন নামের কয়েকজনকে শনাক্ত করা হয়েছে। হামলার সময় যে যুবকটি মহসিনের পা ধরে রেখেছিল তার নাম জুয়েল। তুহিন, রাব্বী, পারভেজ, সাজু ও ফারহান তাকে লাঠি দিয়ে পেটায়। আর খোকন তাদের সঙ্গে ছিল।

উত্তর পাহাড়তলী ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক সরওয়ার মোর্শেদ কচি বলেন, জহুরুল আলম জসিমের নির্দেশে তার অনুসারীরা এ হামলা চালিয়েছে। তারা মধ্যযুগীয় কায়দায় মহসিনকে পিটিয়েছে।

তবে অভিযোগ অস্বীকার করে উত্তর পাহাড়তলী ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক ও স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর জহুরুল আলম জসিম বলেন, আমার কোনো গ্রুপ নেই। ওই ঘটনার বিষয়টি জানতামও না। আমার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ মিথ্যা। তবে পরে শুনেছি যাকে মারধর করা হয়েছে সে ১৮ মামলার আসামি। তিনদিন আগে জেল থেকে বের হয়েছে।

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই মো. আলাউদ্দিন বলেন, গত রোববার সন্ধ্যার দিকে আকবরশাহ থানা এলাকা থেকে মো. মহসিন নামে একযুবককে গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। প্রথমে তাকে হাসপাতালের ক্যাজুয়ালিটি বিভাগে চিকিৎসা দেওয়া হয়। পরে হাসপাতালের নিউরো সার্জারি ওয়ার্ডে স্থানান্তর করা হয়েছে। সেখানে তাকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

ভিডিও…

মানুষকে মানুষ এভাবে পেটায়!

মানুষকে মানুষ এভাবে পেটায়!দাঁড়িয়ে থাকা মহসিনকে অতর্কিত এসে মারধর শুরু করে ১২-১৫ জনের একটি দল। মহসিন তাদের কাছ থেকে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে চারপাশ থেকে ঘিরে রড ও লাঠি দিয়ে পেটাতে থাকে তারা। পরে মারা গেছে ভেবে মহসিনকে ফেলে রেখে যায়। হামলার শিকার যুবলীগ কর্মী মো. মহসিন চট্টগ্রামের বিশ্ব কলোনির এন ব্লকের বাসিন্দা। তিনি উত্তর পাহাড়তলী ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক সরওয়ার মোর্শেদ কচির অনুসারী হিসেবে পরিচিত। তার অভিযোগ, একই ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের আরেক যুগ্ম আহ্বায়ক ও স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর জহুরুল আলম জসিমের অনুসারীরা তার ওপর এ হামলা চালিয়েছে।https://starmail24.com/%e0%a6%ae%e0%a6%be%e0%a6%a8%e0%a7%81%e0%a6%b7%e0%a6%95%e0%a7%87-%e0%a6%ae%e0%a6%be%e0%a6%a8%e0%a7%81%e0%a6%b7-%e0%a6%8f%e0%a6%ad%e0%a6%be%e0%a6%ac%e0%a7%87-%e0%a6%aa%e0%a7%87%e0%a6%9f%e0%a6%be/

Gepostet von starmail24.com am Montag, 1. Juli 2019


  
এ সম্পর্কিত আরও খবর...

‘রাস্তা ছাড়েন ভাই, ডিআইজি স্যার বসে আছেন’

পেশাগত দায়িত্ব পালনের সময় পুলিশের গাড়ির ধাক্কায় আহত হয়েছেন এক সাংবাদিক।

মালয়েশিয়ায় ড্রাইভিংয়ের অপরাধে ৫৬ বাংলাদেশিকে আটক

মালয়েশিয়ায় লাইসেন্স এবং বৈধ কাগজপত্র ছাড়াই ড্রাইভিংয়ের অপরাধে ৫৬ বাংলাদেশিকে আটক করেছে দেশটির ট্রাফিক পুলিশ। সোমবার থেকে শুরু হওয়া তিন দিনের এই অভিযান চালায় ট্রাফিক পুলিশ কুয়ালালামপুর। অবৈধ অভিবাসীদের বিরুদ্ধে অভিযান জোরদারের পর থেকে ইমিগ্রেশন বাহিনীর পাশাপাশি ট্রাফিক পুলিশও অভিযান পরিচালনা করছে। তারই ধারাবাহিকতায় রাজধানীতে বৈধ কাগজপত্র দেখাতে ব্যর্থ ২৩৪ জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। আটকদের […]

আজ ঝিনাইদহ হানাদার মুক্ত দিবস

৬ ডিসেম্বর পাক হানাদার ও এদেশে তাদের দোসরদের হটিয়ে ঝিনাইদহকে শত্রুমুক্ত করে

মন্তব্য লিখুন...

Top