16/11/2019 , ঢাকা

বয়স ত্রিশের পর এড়িয়ে যাবেন যে চার খাবার


প্রকাশিত: 16/11/2019 00:32:23| আপডেট:

স্টার মেইল ডেস্ক: ত্রিশ জীবনের গুরুত্বপূর্ণ একটি সময়। একে জীবনের একটি বাঁকও বলা যেতে পারে। যৌবনের মাঝামাঝি এ সময়টাতে শরীর ও মনের বিভিন্ন পরিবর্তন হয়।

সারা জীবন সুস্থ থাকতে হলে এ সময়টা থেকে শরীরের প্রতি বাড়তি যত্ন নেওয়া প্রয়োজন। পাশাপাশি প্রয়োজন নিয়ন্ত্রিত জীবনযাপন। কিছু খাবার রয়েছে, যেগুলো ত্রিশের পর সুস্থ থাকতে এড়িয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন বিশেষজ্ঞরা। ত্রিশের পর এড়িয়ে যাওয়া ভালো এমন কিছু খাবারের তালিকা জানিয়েছে স্বাস্থ্যবিষয়ক ওয়েবসাইট ডেমিক। আসুন জানি সেগুলো :

১. মদ্যপান: অ্যালকোহলের মধ্যে ক্যালরি রয়েছে। ৩০ বছরের পর শরীরের এই বাড়তি ক্যালরি ঝড়াতে কষ্ট হয়। অ্যালকোহল ইনসুলিনের মাত্রাকেও বাড়িয়ে দেয়।এতে দেহ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এ ছাড়া অতিরিক্ত মদ্যপান কার্বোহাইট্রেট জাতীয় খাবার খাওয়া ইচ্ছা বাড়িয়ে দেয়। এতে ওজন বাড়ে। তাই ত্রিশের পর মদ্যপান করা থেকে বিরত থাকার পরামর্শ দেন বিশেষজ্ঞরা।

২. কৃত্রিম চিনি: চিনিকে হোয়াইট পয়জন বা সাদা বিষ বলা হয়। কৃত্রিম চিনি অতিরিক্ত খাওয়া ক্যানসার ও টাইপ-টু ডায়াবেটিসের ঝুঁকি বাড়ায়। তাই ত্রিশের পর এ খাবার যত কম খাওয়া যায়, তত মঙ্গল।

৩. অতিরিক্ত চা-কফি পান: দুধ-চিনিযুক্ত কফি বা চা পান ত্বকের লাবণ্যতা ও সৌন্দর্য নষ্ট করে। চায়ে থাকে ক্যাফেইন, দুধে থাকে ক্যাজেইন। এ ছাড়া দুধ চা শরীরকে পানিশূন্য করে দেয়। এতেও ত্বকের ক্ষতি হয়। আর ৩০ বছরের পর যেহেতু ত্বক ধীরে ধীরে বার্ধক্যের দিকে এগোতে থাকে, তাই অতিরিক্ত চা-কফি না খাওয়ারই পরামর্শ দেন বিশেষজ্ঞরা। দুধ চা বা দুধ কফি খাওয়ার পরিবর্তে ভেষজ চা খাওয়া যেতে পারে।

৪. সাদা আটা: ত্রিশ বছরের পর শরীরের দরকার ভালো কিছু। তাই এ সময় থেকে সাদা আটার রুটি এড়িয়ে যেতে বলেন বিশেষজ্ঞরা। শরীর আটাকে গ্লুকোজে রূপান্তর করে। আর গ্লুকোজ দ্রুত চর্বি জমায়। এর পরিবর্তে লাল আটার রুটি খাওয়া যেতে পারে বলে পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের।


  
এ সম্পর্কিত আরও খবর...

ঝিনাইদহে ১১০ বছরের বৃদ্ধার ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

এলাকাবাসী বলছেন, ছবিরন নেছার ৭ ছেলে মেয়ে। মৃত্যুর আগের দিনেও তিনি স্বাভাবিকভাবে পারিবারিক কাজকর্ম ও ঘুরে ফিরে বেড়িয়েছেন।

ঝিনাইদহে মন্দিরে চুরি

চোরে না শোনে ধর্মের কাহিনী। এমনই এক ঘটনা ঘটেছে ঝিনাইদহে।

৭শ টাকায় খাসির মাংস খেতে পারেন ২৭০ টাকায় পেঁয়াজ খেতে কষ্ট কিসের!

ঝিনাইদহের বাজারে প্রতি কেজি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ২৭০ টাকা দরে।

মন্তব্য লিখুন...

Top