13/11/2019 , ঢাকা

বোরকা ছেড়ে ‘বিদ্রোহী’ সৌদি তরুণীরা


প্রকাশিত: 13/11/2019 20:32:45| আপডেট:

স্টার মেইল ডেস্ক: সাদা টপের উপরে কমলা জ্যাকেট, সাদা ট্রাউজার ও হাই হিলে সুসজ্জিতা এক নারী। সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদের শপিংমলে এই নারীর দিকে চোখ পড়েছিলো উপস্থিত সকলেরই।

তবে আসল বিষয় হলো, সকলের চোখে নিজের দিকে পড়ুক সেটিই চেয়েছিলেন সেই সৌদি নারী মাশায়েল আল-জালৌদ। ৩৩ বছর বয়সী মাশায়েল একটি সংস্থার মানবসম্পদ বিভাগে কাজ করেন। পাশাপাশি নিজের মতো করে চালিয়ে যাচ্ছেন মানবাধিকার রক্ষার লড়াই। আর বোরকা ছাড়া পশ্চিমা পোশাকে রিয়াদের শপিংমলে উপস্থিত হয়ে সকলের নজরকাড়া সেই আন্দোলনেরই অংশ ছিলো।

রক্ষণশীল মুসলিম রাষ্ট্র সৌদি আরবে প্রকাশ্য রাস্তায় বেরোতে হলে মেয়েদের কালো বোরকা বা ‘আবায়া’ পরা বাধ্যতামূলক। ধর্মের প্রতীক হিসেবেই বিষয়টিকে দেখা হয়। সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান সম্প্রতি দেশটিতে নারীর ক্ষমতায়নের কথা ভাবছেন বলে জানিয়েছেন। গতবছর একটি টিভি চ্যানেলে সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে যুবরাজ বলেছিলেন, মেয়েদের পোশাক নিয়ে কড়াকড়ি কমানো হবে। ইসলাম ধর্মে বোরকা পরা বাধ্যতামূলক নয়।

যদিও যুবরাজের অনুমোদনের পরও সেদেশের সমাজে এর কোনও প্রভাব পড়েনি।

ব্যতিক্রমী মাশায়েল জানান, তিনি বোরকা পরা ছেড়ে দিয়েছেন। গত সপ্তাহে তাকে শপিংমলে দেখে অনেকেই বাঁকাচোখে দেখছিলেন। ভেবেছিলেন মাশায়েল কোনও সেলেব্রিটি। অনেকে তাকে জিজ্ঞাসাও করেছেন, আপনি কি বিখ্যাত কেউ? কোনও মডেল?

কট্টরবাদী সৌদি আরবে মাশায়েলের মতো বোরকা ছেড়েছেন ২৫ বছরের মানবাধিকারকর্মী মানাহেল আল-ওতাইবিও। তিনি জানান, রিয়াদে বাস করেও গত চারমাস বোরকা পরছেন না তিনি। মানাহেলের কথায়, ‘‘স্বাধীনভাবে বাঁচতে চাই।’

মানাহেলের কথায়, ‘আমি শুধু নিজের ইচ্ছা অনুযায়ী কোনরকম বাধা ছাড়াই স্বাধীনভাবে বাঁচতে চাই। আমি বিশ্বাস করি, আমি যা পরতে চাই না সেরকম কোনও পোশাক আমাকে পরতে জোর করা উচিৎ নয়।’


  
এ সম্পর্কিত আরও খবর...

প্রাথমিক শিক্ষকদের বেতন বাড়ছে

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও সহকারী শিক্ষকদের বেতন বাড়াতে

ঝিনাইদহ শহরে এমপির পিএসসহ দুই জনকে কুপিয়ে জখম

এদিকে খবর পেয়ে জেলা পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা হাসপাতালে আহতদের দেখতে যান।

ঝিনাইদহে সড়কে ঝরলো দুই প্রাণ

স্থানীয় লোকজন আহতদের উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। নিহত ও আহতদের বাড়ি

মন্তব্য লিখুন...

Top