12/12/2019 , ঢাকা

দুই প্রধান শিক্ষক গ্রেপ্তার


প্রকাশিত: 12/12/2019 02:37:50| আপডেট:

স্টার মেইল ডেস্ক: চট্টগ্রাম ও কুষ্টিয়ায় দুই প্রধান শিক্ষককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। স্টার মেইলের প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর:

চট্টগ্রাম নগরীর পতেঙ্গায় দুই ছাত্রীকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগে একটি স্কুলের প্রধান শিক্ষককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, ২০১৭ সালে একই অভিযোগে ওই শিক্ষক আরো একবার গ্রেপ্তার হয়েছিলেন।

সোমবার (৫ আগস্ট) সকালে নগরীর পতেঙ্গা থানার উত্তর পতেঙ্গা এলাকায় ‘পতেঙ্গা গ্রামার স্কুলে’ এ ঘটনা ঘটেছে। মতিউর রহমান (৪৫) ওই স্কুলের অন্যতম পরিচালক এবং প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব পালন করছেন।

পতেঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) উৎপল কান্তি বড়ুয়া স্টার মেইলকে বলেন, ‘পঞ্চম ও ষষ্ঠ শ্রেণির দুই ছাত্রীকে মতিউর জড়িয়ে ধরেছিলেন। তারা বিষয়টি অভিভাবককে জানায়। পরে স্থানীয় লোকজন গিয়ে মতিউরকে অবরুদ্ধ করে রাখে। স্কুলে ভাঙচুরেরও চেষ্টা করে। খবর পেয়ে আমরা গিয়ে মতিউরকে গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে যায়। তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে।’

ওসি জানান, প্লে থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের পড়ানো হয় ওই স্কুলে। মতিউরসহ দু’জন ওই স্কুলের পরিচালক হিসেবে রয়েছেন।

এদিকে কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে এক স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে জামাল উদ্দিন নামে স্কুলের এক প্রধান শিক্ষককে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। রবিবার রাতে উপজেলার আদাবাড়িয়া ইউনিয়নের গড়ুড়া গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। সে ডিজিটি বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও গড়ুড়া গ্রামের ইউনুচ মাষ্টারের ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, ডিজিটি বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের এক ছাত্রীকে বেশ কিছুদিন ধরে একই স্কুলের প্রধান শিক্ষক জামাল উদ্দিন কু-প্রস্তাব দিয়ে আসছিল। বাড়িতে কেউ না থাকায় বৃহস্পতিবার ওই ছাত্রীর বাড়ি গিয়ে তাকে একা পেয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণের চেষ্টা করে প্রধান শিক্ষক জামাল উদ্দিন। স্কুল ছাত্রী ধর্ষণ চেষ্টার এ ঘটনা পরিবারের লোকজনকে জানানোর কথা বললে লম্পট শিক্ষক ওই ছাত্রীর বাড়ি ত্যাগ করে। পরে ওই ছাত্রী পরিবারের লোকজনকে শিক্ষক জামাল উদ্দিনের কু-কৃত্তির কথা জানালে পরিবারের লোকজন দৌলতপুর থানায় ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগের ভিত্তিতে দৌলতপুর থানা পুলিশ লম্পট প্রধান শিক্ষক জামাল উদ্দিকে গ্রেপ্তার করেন।

দৌলতপুর থানার ওসি মো. আজম খান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, শিক্ষক জামাল উদ্দিনের বিরুদ্ধে ধর্ষণ চেষ্টার মামলা হলে তাকে গ্রেফতার করে সোমবার দুপুরে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে দুই শিক্ষিকাকে কুপ্রস্তাবের অভিযোগ: সিরাজগঞ্জের তাড়াশে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে দুই শিক্ষিকাকে কুপ্রস্তাব দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এ নিয়ে বিচার চেয়ে সরকারি বিভিন্ন দপ্তরে রোববার লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন ভুক্তভোগী ওই দুই সহকারী শিক্ষিকা।

ঘটনাটি ঘটেছে, উপজেলার মাধাইনগর ইউনিয়নের সরাপপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। অভিযোগের বিষয়টি খতিয়ে দেখতে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করেছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার মাধাইনগর ইউনিয়নের সরাপপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ভবেশ চন্দ্র রায় একই বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকাকে মোবাইলে নগ্ন ছবি দেখিয়ে ও বিভিন্ন ভাবে কু-প্রস্তাব দিয়ে শ্লীলতাহানি করে আসছিলেন। বিষয়টি স্কুলের সিনিয়র শিক্ষক ও ম্যানেজিং কমিটির সভাপতিকে বলেও কোনো সমাধান না পেয়ে রবিবার জেলা প্রশাসকসহ সরকারি বিভিন্ন দপ্তরে তারা লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন ।

সহকারী শিক্ষিকা শ্যামলী বালা বলেন, চাকরি সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় কাগজপত্রাদি স্বাক্ষরের জন্য প্রধান শিক্ষকের কক্ষে গেলে তিনি কথার মাঝে আমাকে কু-প্রস্তাব দেন। বিষয়টি তার সিনিয়র শিক্ষক শাজাহান আলী ও জহুরুল ইসলামকে জানালে তারা সভাপতিকে জানান।

পরে প্রধান শিক্ষক সভাপতির নিকট ক্ষমা প্রার্থনা করে বলেন, এ ধরনের ঘটনা আর কখনো হবে না। কিন্তু তার পরেও প্রধান শিক্ষক ভবেশ চন্দ্র সংশোধন না হয়ে আবারো ৪ জুলাই শিক্ষকা শাহানা খাতুনকে তার অফিস কক্ষে ডেকে নিয়ে নিজ মোবাইলে শিক্ষিকার হাতে দিয়ে জাতীয় সংগীত বের করতে বলেন। শাহানা খাতুন মোবাইল হাতে নিয়ে অশ্লীল ভিডিও দেখে মোবাইল ফেলে দিয়ে অফিস কক্ষ থেকে দ্রুত বের হয়ে অন্যান্য শিক্ষকদের জানান।

প্রধান শিক্ষকের দেওয়া কু-প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় ও বিদ্যালয় সভাপতিকে জানানোর কারণে বিদ্যালয়ে চাকরি করতে দেবেন না বলে হুমকি দিচ্ছেন ওই প্রধান শিক্ষক।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক ভবেশ চন্দ্র রায়ের মোবাইলে কল করে অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি কথা না বলে ফোন কেটে দেন।

তাড়াশ উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আখতারুজ্জামান স্টার মেইলকে বলেন, কুপ্রস্তাবের বিষয়ে দুই শিক্ষকা অভিযোগ দিয়েছেন। বিষয়টি খতিয়ে দেখতে তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। প্রমাণ মিললে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


  
এ সম্পর্কিত আরও খবর...

সেই শিক্ষক ৮ দিনের রিমান্ডে

শনিবার (২৩ নভেম্বর) এরশাদুলের পাঁচদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছিলেন আদালত। প্রথম দফায় মঞ্জুর হওয়া রিমান্ডের তিনদিন জিজ্ঞাসাবাদের

প্রশ্নফাঁস করে আগের দিন নিজের মেয়ের পরীক্ষা নিলেন প্রধান শিক্ষক

অষ্টম শ্রেণির মডেল টেস্টে নিজের মেয়েকে ভালো ফল পাইয়ে দিতে ‘ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা’ বিষয়ের প্রশ্নফাঁসের অভিযোগ উঠেছে

৯ ভুয়া পরীক্ষার্থীসহ এক শিক্ষক আটক

শিক্ষক নুরুল ইসলামকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে বিচারিক আদালতে পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছে।

মন্তব্য লিখুন...

Top