1. jashimsarkar@gmail.com : admin :
  2. mahir1309@gmail.com : star mail24 : star mail24
  3. sayeed.fx@gmail.com : sayeed : Md Sayeed
  4. newsstarmail@gmail.com : Star Mail : Star Mail
শিরোনাম :
‘এটাতো চিন্তাও করা যায় না মুজিববর্ষে ভারতের প্রতিনিধিত্বকে আমরা বাদ দেবো’ কারাবন্দি খালেদা জিয়ার এবারও জামিন হলো না রিমান্ডে মন্ত্রী,এমপি ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তাদের নাম পাপিয়ার মুখে যশোরে ছাত্রবাসে মিললো বিপুল পরিমাণ অস্ত্র-গুলি-বোমা দিল্লিতে সংঘর্ষের মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৩৪ প্রয়োজনে মুসলমানদের জন্য জীবন দিবো, মাথা নোয়াব না: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মালয়েশিয়ান সিভিল সার্ভেন্টদের রাজনীতি থেকে দূরে থাকার নির্দেশ অন্তর্বর্তীকালীন সরকারের যুব মহিলালীগের নাজমা অপুকে বিরক্ত প্রধানমন্ত্রীর প্রশ্ন কেনো এসেছো? ব্যাংক বন্ধ হয়ে গেলে এক লাখ টাকা নয়, পুরো টাকাই ফেরত পাবেন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সব শিক্ষককে শাস্তিমূলক বদলি




ড. মুহাম্মদ ইউনূসের সামাজিক ব্যবসা অলিম্পিকে

ষ্টার মেইল রিপোর্ট :
  • প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ৯ নভেম্বর, ২০১৮

প্যারিস অলিম্পিকে যুক্ত হলো শান্তিতে নোবেল জয়ী প্রফেসর ড. মুহাম্মদ ইউনূসের সামাজিক ব্যবসা কার্যক্রম। বৃহস্পতিবার জার্মানির ওল্ফসবার্গে সামাজিক ব্যবসা নবম শীর্ষ সম্মেলন থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে এ ঘোষণা দেয়া হয়। আগের বছর প্যারিস সম্মেলনে সিদ্ধান্ত হলেও আনুষ্ঠানিক ঘোষণা এলো এবারের সম্মেলন থেকে। এ সম্মেলনে স্কাইপের মাধ্যমে অলিম্পিক আয়োজক কমিটির কর্মকর্তারাও যুক্ত হন। সম্মেলনস্থলে প্রফেসর ইউনূস যখন এ ঘোষণা দেন তখন মুর্হুমুহু করতালিতে তাকে স্বাগত জানান বিশ্বের ৫০টি দেশ থেকে আসা আট শতাধিক প্রতিনিধি। ২০২৪ সালের প্যারিস অলিম্পিক আয়োজক কমিটির সদস্য হিসেবে রাখা হয়েছে প্রফেসর ইউনূসকে।

অলিম্পিকে যুক্ত হওয়ার ঘোষণা দিয়ে ড. মুহাম্মদ ইউনূস বলেন, বিনোদন ও বাণিজ্যিক কার্যক্রমের বাইরে খেলা যে সমাজ পরিবর্তনের বিরাট শক্তি হতে পারে তা তুলে ধরতেই এ উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। তিনি বলেন, খেলাধুলা একটা বিরাট শক্তি। শুধু আপ্যায়ন, বিনোদন বা বাণিজ্যিক ক্ষেত্রে এটাকে ব্যবহার না করে সামাজিক পরিবর্তনের বিরাট শক্তি হিসেবে ব্যবহার করা যায়। এটি বিবেচনা করেই প্যারিস ঠিক করেছে ২০২৪ সালের অলিম্পিককে সামাজিক ব্যবসা রূপে গড়ে তুলবে। প্রফেসর ইউনূস বলেন, ফ্রান্সের সবচেয়ে গরিব এলাকায় অনুষ্ঠিত হচ্ছে অলিম্পিক। এই এলাকার মানুষের জীবনযাত্রা পাল্টে দেয়া সম্ভব এই অলিম্পিকের মাধ্যমে।

ওল্ফসবার্গ সম্মেলনের অর্জন সম্পর্কে প্রফেসর ইউনূস মানবজমিনকে বলেন, এবারের সম্মেলন হয়েছে বিখ্যাত গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ভক্সওয়াগনের প্রধান কার্যালয়ে। এই প্রতিষ্ঠানও সামাজিক ব্যবসা কার্যক্রমে যুক্ত হওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেছে। তারা বলেছে, ব্যবসার দুই বা তিন শতাংশ এক্ষেত্রে ব্যয় করতে চায়। এটা একটা বড় বিষয়।

সম্মেলনে আলোচনার বিষয়বস্তু ছিল নতুন সভ্যতা। আমি বলেছি পুরনো সভ্যতাকে আর বাঁচানো যাবে না। আমাদের নতুন সভ্যতা গড়ে তুলতে হবে। সেখানে সামাজিক ব্যবসা একটা বড় ভূমিকা রাখবে। পুরনো সভ্যতার যে মূলভিত্তি মুনাফা ভিত্তিক অবস্থান- সেটা থেকে আমরা বের হয়ে আসবো।

নবম সম্মেলনের মূল্যায়ন করে প্রফেসর ইউনূস বলেন, গত পাঁচ বছরে অনেক পরিবর্তন এসেছে। স্পোর্টসকে এর মধ্যে নিয়ে আসা হয়েছে। প্লাস্টিক এবং টায়ার নির্মাতা বড় বড় প্রতিষ্ঠানকে আমরা দাওয়াত করেছি। তারা আসবে। প্লাস্টিক দূষণকে কীভাবে রোধ করা যায় তা নিয়ে আলোচনা হবে। এর মাধ্যমে নতুন নতুন কর্মপন্থা ও উদ্যোগ গড়ে উঠে। সেটাই হবে আমাদের এই কাজের সার্থকতা।

শীর্ষ সম্মেলনে জার্মান সরকারের পক্ষে ফেডারেল মন্ত্রী ড. মারিয়া ফ্ল্যাশবার্থ বলেন, সামাজিক ব্যবসা দুনিয়াকে যে বদলে দিতে পারে এতে কোনো সন্দেহ নেই।

** নির্ভরযোগ্য খবর জানতে ও পেতে স্টার মেইলের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে রাখুন: Star Mail/Facebook




এই বিভাগের আরো সংবাদ