20/09/2019 , ঢাকা

সারাবছরই প্রাথমিকের শিক্ষকদের বদলির সুযোগ থাকছে


প্রকাশিত: 20/09/2019 17:36:59| আপডেট:

স্টার মেইল, কুড়িগ্রাম: শুধু তিনমাস নয়, সারাবছরই প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকদের বদলির সুযোগ থাকবে বলে জানিয়েছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন। এ লক্ষ্যে প্রাথমিকের শিক্ষকদের বদলি কার্যক্রমকে অনলাইনের আওতায় আনার ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে বলেও জানান তিনি। বৃহস্পতিবার (১২ সেপ্টেম্বর) দুপুরে কুড়িগ্রামের রৌমারী উপজেলা পরিষদ হলরুমে প্রাথমিক শিক্ষার মানোন্নয়নে বিভাগীয় মাসিক সমন্বয় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা জানান।

জাকির হোসেন বলেন, ‘আমরা নীতিমালা করেছি, প্রাথমিকে আর সরাসরি প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হবে না। সহকারী শিক্ষকদের মধ্যে যাদের পাঠদানের মান ভালো হবে, তাদের পদোন্নতি দিয়ে প্রধান শিক্ষক করা হবে। প্রধান শিক্ষকদের এটিও এবং টিও হিসেবে পদায়ন করা হবে।’

মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিত করার জন্য সব ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে জানিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘সারাবছর ধরে শিক্ষকদের বদলি কার্যক্রম চলার পাশাপাশি বেতন বৈষম্যও দূর করা হবে।’

প্রাথমিক শিক্ষায় কুড়িগ্রাম জেলা যাতে রোল মডেল হয়, সেই লক্ষ্যে শিক্ষার্থীদের পড়ানোর জন্য শিক্ষকদের আহ্বান জানিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘শিক্ষকদের মান উন্নয়ন ও দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য বহুমুখী প্রশিক্ষণেরর ব্যবস্থা করা হবে।’

“শিক্ষা নিয়ে গড়বো দেশ, শেখ হাসিনার বাংলাদেশ”—এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে রংপুর বিভাগীয় সমন্বয় সভায় প্রাথমিক শিক্ষা, রংপুর বিভাগের উপ-পরিচালক আব্দুল ওয়াহাবের সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য রাখেন জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা শহিদুল ইসলাম, রৌমারী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শেখ আব্দুল্লাহ, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দীপঙ্কর রায়, উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. নজরুল ইসলাম প্রমুখ।


  
এ সম্পর্কিত আরও খবর...

শিক্ষিকার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র

শিক্ষিকা সাজেদা বেগম সকল শিক্ষার্থীদের কাছে প্রিয় একজন শিক্ষক। বর্তমানে সাজেদা বেগম টাইফয়েড জ্বরে আক্রান্ত হওয়ায় ১০ সেপ্টেম্বর থেকে ২০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত তার ছুটি মঞ্জুর করা হয়।

স্কুল-কলেজের এমপিও নিয়ে জানতে চেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী

এমপিওভুক্তির জন্য ১ হাজারের মতো মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানেরও তালিকা তৈরি করা হয়েছে।

ফেসবুকে বিরুদ্ধ মত দিলেই বহিষ্কার করেন উপাচার্য

শ্রেণিকক্ষ অপরিষ্কার থাকার বিষয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে ফেসবুকে স্ট্যাটাস ও মন্তব্য (কমেন্ট) করায় ৪ সেপ্টেম্বর একই বিভাগের ছয় শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়।

মন্তব্য লিখুন...

Top