15/10/2019 , ঢাকা

নববধূর যৌনাঙ্গ কেটে দিলেন স্বামী


প্রকাশিত: 15/10/2019 02:16:36| আপডেট:

বিয়ের চার দিনের মাথায় নববধূর যৌনাঙ্গ কাঁচি দিয়ে কেটে ফেলেছেন তার স্বামী। সিলেটের ওসমানী হাসপাতালে পাঁচ দিনের চিকিৎসা শেষে ২৪ জুন নির্যাতিতা জকিগঞ্জ থানায় এ ব্যাপারে মামলা দায়ের করেছেন। ভয়ংকর বিভৎস এ ঘটনাটি ঘটেছে সিলেটের জকিগঞ্জ উপজেলার চারিগ্রামে।

মামলার এজাহারে বাদী উল্লেখ করেছেন চারিগ্রামের মৃত মুচব্বির আলীর ছেলে নাজিম উদ্দিনের (৩৩) সঙ্গে গত ১৩ জুন হরাইত্রিলোচন গ্রামের দিনমজুর আব্দুল গফুরের মেয়ে মামলার বাদী রুনা বেগমের বিয়ে হয়। বিয়ের প্রথম রাতেই রুনার স্বামী নাজিম উদ্দিন স্ত্রীকে বলেন, বিয়েতে তার প্রায় এক লাখ টাকা খরচ হয়েছে। সে টাকা বাবার বাড়ি থেকে এনে দিওয়ার জন্য রুনাকে চাপ দেন। ১৭ জুন গভীর রাতে যৌতুকের টাকা নিয়ে বাকবিতন্ডার সময় গামছা ও ওড়না দিয়ে হাত-পা বেঁধে মারধরের এক পর্যায়ে রুনার যৌনাঙ্গ কাঁচি দিয়ে কেটে ফেলে। এতে রুনা অজ্ঞান হয়ে যান। ভোরে রক্তাক্ত অবস্থায় গ্যাসচালিত অটোরিকশা (সিএনজি) দিয়ে বাবার বাড়ি পাঠিয়ে দেন স্বামী নাজিম।

রুনাকে প্রথমে জকিগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পরে সিলেট এমএজি ওসমানী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

রুনার বাবা নাজিম উদ্দিন বলেন, পাঁচ দিন পুড়ি (মেয়ে) আসপাতাল (হাসপাতাল) আছিল। আইজ পর্যন্ত সে পুরাপুরি বালা অয়নাই। ৫ বাচ্চার মাঝে রুনা আমার বড় পুড়ি। ধার করজ কইরা পুড়িরে বিয়া দিছিলাম। নাজিম আমার পুড়ির সর্বনাশ করল। আমি বিচার চাই।

জকিগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাবিবুর রহমান হাওলাদার বলেন, জঘন্য ঘটনায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা হয়েছে। আসামি ধরার চেষ্টা চলছে।


  
এ সম্পর্কিত আরও খবর...

পূর্বাশা পরিবহনের বাসের ধাক্কায় নিহত ২

ঢাকাগামী পূর্বাশা পরিবহনের একটি বাসের ধাক্কায় এক নারীসহ একই পরিবারের দু’জন নিহত হয়েছেন। শুক্রবার দুপুরে এই ঘটনা ঘটে।

যশোরে ব্যাগে টান ছিনতাইকারীর, শিশুসহ রাস্তায় ছিটকে পড়লেন মা

মোটরসাইকেল চালিয়ে আসা ছিনতাইকারী রিকশা আরোহী নারীর ব্যাগ ধরে টান দিলে ওই নারী ও তার কোলে থাকা শিশু সন্তান রাস্তার ওপর ছিটকে

শ্বশুরবাড়িতে স্ত্রীকে হত্যার পর ঝিনাইদহের যুবকের আত্মহত্যা

চলতি বছরের ২৭ জুন তাদের বিয়ে হয়। পূজা উপলক্ষ্যে অষ্টমীর দিনে দিপুল তার স্ত্রীকে নিয়ে শৈলকুপা থেকে শ্বশুর বাড়িতে এসেছিলেন। সেখানেই এ ঘটনা ঘটে।

মন্তব্য লিখুন...

Top